WB Utsoshree Scheme | উৎসশ্রী প্রকল্প~ উৎসারিত আলো

Monday, May 2 2022, 8:06 am
highlightKey Highlights

প্রাথমিক, উচ্চ-প্রাথমিক, মাধ্যমিক উচ্চ-মাধ্যমিক, বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষিকা ও শিক্ষাকর্মীদের সাধারণ বদলির ক্ষেত্রে খুবই উপকার করেছে।


ভূমিকা | Introduction of Utsoshree Scheme:

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উদ্যোগে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় পরি চালিত উৎসশ্রী প্রকল্প ২০২১  হল সরকার পোষিত ও সাহায্যপ্রাপ্ত প্রাথমিক , উচ্চ-প্রাথমিক, মাধ্যমিক উচ্চ-মাধ্যমিক, বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষিকা ও শিক্ষাকর্মীদের সাধারণ বদলির জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের একটি অনন্য উদ্যোগ যার মাধ্যমে শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষাকর্মীরা নিজেরা কিছু শর্ত সাপেক্ষে অনলাইনে বদলির জন্য আবেদন করতে পারবেন। এই আবেদন পদ্ধতি পূর্ণাঙ্গ রূপে উৎসশ্রী পোর্টালের মাধ্যমে হবে, যা দেখাশোনা করার দায়িত্বে আছে বিদ্যালয় শিক্ষা দপ্তর।

প্রকল্পের শুভারম্ভ | Launch of Utsoshree Scheme:

পশ্চিমবঙ্গ সরকার উক্ত প্রকল্পটি উদ্বোধন করে ৩১ শে জুলাই ,২০২১ যা সরকারিভাবে চালু হয় ২ রা অগাস্ট ২০২১ থেকে। রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনে করেন শিক্ষাই হলো সবকিছুর উৎস তাই এই পোর্টালটির নাম দেওয়া হয়েছে উৎস-শ্রী। এই প্রকল্পটির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি হল  https://banglarshiksha.gov.in/utsashree

প্রকল্পটির উদ্দেশ্য | Purpose of Utsoshree Scheme

চলতি বছরের আগস্ট মাসে চালু হওয়া উৎসশ্রী প্রকল্পের প্রধান উদ্দেশ্য হল রাজ্যের সমস্ত সরকারি স্কুলের সমস্ত শিক্ষক-শিক্ষিকা যাতে নিজস্ব জেলায় বদলির আবেদন করতে পারেন অর্থাৎ সরকার পরিচালিত ও সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত যে সকল প্রাথমিক, উচ্চ প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকা বাড়ি থেকে দূরে কোন স্কুলে কর্মরত আছেন, তারা বাড়ীর নিকটবর্তী কোন শূন্য পদ থাকা স্কুলে বদলো হয়ে আসার আবেদন করতে পারবেন।এই প্রকল্পের লক্ষ্য একটাই আর তা হল ~ শিক্ষক-শিক্ষিকাদের তাদের নিজের বাড়ি থেকে দূরে থেকে যাতে কাজ করতে না হয়।

উৎসশ্রী প্রকল্পে আবেদন করার পদ্ধতি | Application process of Utsoshree Scheme

'দুয়ারে সরকার' প্রকল্পের অধীনে নতুন উৎসশ্রী প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে যেভাবে আবেদন করতে হবে তা উল্লেখ করা হল: 

  1. রাজ্য সরকারের ‘উৎসশ্রী’ প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে প্রথমে এবং তারপর আইওএসএমএস অপশনে গিয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকারা তাঁদের নিজেদের এমপ্লইজ আইডি ও নিজের ফোন নাম্বারে দিতে হবে ,পরবর্তী পর্যায়ে একটি পাসওয়ার্ড আসবে এবং আবেদনকারী সেই পাসওয়ার্ড দিয়ে সাবমিট করার সাথে সাথে লগ ইন করতে পারবেন।
  2. পরবর্তী পদক্ষেপে শিক্ষক-শিক্ষিকারা কোন জেলায় স্থানান্তরের জন্য আবেদন করতে চান সে বিষয়টিকে বেছে নিতে পারবেন।
  3. যে সমস্ত স্কুলে শূন্য পদ রয়েছে সেই স্কুল গুলিকেই দেখাবে অপশন হিসেবে। এদের মধ্যে নিজের পছন্দমত জায়গায় সর্বাধিক তিনটি স্কুল বেছে নিতে পারবেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা।
  4. কি কারণে আবেদনকারী স্কুলে স্থানান্তর হতে চাইছেন সে কারণটি বিশদে উল্লেখ করতে হবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে এই ক্ষেত্রে অসুস্থতা বা দশ বছরের ছোট বাচ্চা থাকলে অথবা সংশ্লিষ্ট শিক্ষক-শিক্ষিকা ৫৭ বছরের বেশি হল তাঁদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয় থাকে। অসুস্থতার কারণে কোনো শিক্ষক শিক্ষিকা যদি নিজের বাড়ির কাছে স্থানান্তর করার জন্য আবেদন করেন তাহলে সে ক্ষেত্রে ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন সহ যাবতীয় ডকুমেন্ট আপলোড করতে হবে পোর্টালে। পরবর্তীকালে শিক্ষা দপ্তরের অফিসার পুরো আবেদন প্রক্রিয়াটি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পর্যবেক্ষণ করার পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। 

কোন কোন ক্ষেত্রে উৎসশ্রী প্রকল্প –এর মাধ্যমে  বদলির জন্য আবেদন করা যাবে | Utsoshree Scheme transferred application

  1. আবেদনকারীর নিজের বা পরিবারে অন্য সদস্যের যেমন নিজের পুত্র, কন্যা বা স্ত্রী/ স্বামীর র কোনো ঘোরতর অসুখ, হৃৎপিন্ডের রোগ, থ্যালাসেমিয়া, অঙ্গ প্রতিস্থাপন ইত্যাদি হলে বদলির জন্য আবেদন করা যাবে। 
  2. আবেদনকারী যদি ৪০% বা তারও বেশি PH ক্যাটাগরি (Physical Handicapped) অর্থাৎ শারীরিক প্রতিবন্ধী বিভাগের মধ্যে পড়েন। 
  3. আবেদনকারী যদি শিক্ষিকা হন তাহলে তাঁদের ক্ষেত্রে ১০ বছরের কম বয়সী বাচ্চা থাকলে বা ডিভোর্স বা স্বামী মারা যাওয়ার কারণে বিদ্যালয় যোগ দিতে অসুবিধে থাকলে তাঁরা বদলির জন্য আবেদন করতে পারেন। 
  4. নিজের জেলাতে বদলিতে ইচ্ছুক আবেদনকারী যদি ৫৭ বছর বা তারও বেশি বয়স্ক শিক্ষক/শিক্ষিকা/শিক্ষাকর্মী হয়ে থাকেন তাহলে তাঁরা অগ্রাধিকার পাবেন।
  5. অন্যান্য যথাযথ এবং উপযুক্ত কারণ থাকলেও তা প্রযোজ্য ।

আবেদন করার যোগ্যতা | Eligibility for Utsoshree Scheme

  1. আবেদনকারির চাকরি নিশ্চিত হতে হবে।
  2. আবেদনকারী শিক্ষক-শিক্ষিকা বা শিক্ষাকর্মীকে বর্তমান বিদ্যালয়ের বর্তমান পোস্টে কমপক্ষে ৫ বছর চাকরি করতে হবে।
  3. আবেদনকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে বর্তমান বিদ্যালয়ের সার্কেলের মধ্যে এবং সেকেন্ডারি সেকশানের ক্ষেত্রে বর্তমান বিদ্যালয়ের ২৫ কিলোমিটারের মধ্যে থাকলে আবেদন করতে পারবেন না।
  4. আবেদনকারী নিজের অন্তিম বদলির ৫ বছরের মধ্যে আবেদন করতে পারবেন না ।
  5. যেসব আবেদনকারী শিক্ষক শিক্ষিকা বা শিক্ষাকর্মীরা বদলির অর্ডার প্রত্যাখ্যান করেছেন , সে ক্ষেত্রে অর্ডার প্রত্যাখ্যানের তারিখ থেকে ৭ বছরের মধ্যে তাঁরা পুনরায় আবেদন করতে পারবেন না ।
  6. আবেদনকারীকে ৫৯ বছরের কম বয়সী হতে হবে । ৫৯ বছরের বেশি হলে আবেদন করা যাবে না।
  7. আবেদনকারী শিক্ষক শিক্ষিকার বিরুদ্ধে যদি কোনো সাসপেনশান বা ডিসিপ্লিনারি প্রসিডিং বা জুডিশিয়াল প্রসিডিং বা ফিনানশিয়াল ইরেগুলারিটি থাকে তাহলে তাঁরা উৎসশ্রী প্রকল্পে আবেদনের অযোগ্য।
  8. বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা শুধুমাত্র প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা (HM) পোস্টের জন্য এবং সহকারি প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা ও টিচার-ইন-চার্জ শুধুমাত্র অ্যাসিস্টেন্ট টিচার পোস্টের জন্য সাধারণ বদলির জন্যই আবেদন করতে পারবেন।
প্রকল্পের উদ্বোধন 
প্রকল্পের উদ্বোধন 

প্রকল্পটির জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র | Documents for Utsoshree Scheme

  1. বদলির জন্য আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় প্রমাণপত্র।
  2. অসুস্থতার কারণ সম্পর্কিত সার্টিফিকেট 
  3. শারীরিক প্রতিবন্ধকতা থাকলে প্রয়োজন হবে প্রতিবন্ধী সার্টিফিকেটের।
  4. মহিলা আবেদনকারীর ক্ষেত্রে ছেলেমেয়ের জন্ম সার্টিফিকেট প্রয়োজনীয়।
  5. দূরত্বের সার্টিফিকেট 
  6. স্থায়ী ঠিকানা ও কর্মরত বিদ্যালয়ের মধ্যবর্তী দূরত্বের প্রমাণপত্র। 
  7. স্বামী-স্ত্রীর কর্মস্থলের মধ্যবর্তী দূরত্বের প্রয়োজনীয় নথি যদি প্রযোজ্য হয়।
  8. আবেদনকারীর ক্ষেত্রে যদি পূর্ববর্তী ট্রান্সফার সার্টিফিকেট থাকে তাহলে সেটিও প্রয়োজন হতে পারে।
  9. প্রতিটি নথি jpeg বা pdf ফর্মাটে এবং সাইজ ২০০ KB এর মধ্যে হতে হবে।

আবেদন করার সময় ভুল করলে তা সংশোধনের উপায় | Application correction process for Utsoshree Scheme

আবেদনকারী SI (প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে) বা HOI (মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে) কে আবেদনপত্রটি Send Back করার জন্য আবেদন করতে পারেন। Send Back হওয়ার পর আবেদনপত্রটিতে আবার সঠিক রূপে সংশোধন করে সাবমিট করতে হবে।

সাধারণ বদলির আবেদনের ক্ষেত্রে পছন্দের তিনটি বিদ্যালয় না পাওয়া গেলে কী করণীয়?

ওপরে পূর্বে উল্লিখিত প্রথম চারটি গ্রাউন্ডে আবেদনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আবেদনকারীকে পছন্দের বিদ্যালয়ের কাছাকাছি কোনো বিদ্যালয়ে যদি ভ্যাকেন্সি বা শূন্যপদ থাকে তাহলে সেখানে তাঁকে বদলি করার চেষ্টা করবে। তবে এ ক্ষেত্রে “অন্যান্য উপযুক্ত কারণ" গ্রাউন্ড আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদন বাতিল ধরা হবে।

অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়া | Online application process of Utsoshree Scheme

পশ্চিমবঙ্গ সরকার উৎসশ্রী প্রকল্পের ক্ষেত্রে অনলাইন পোর্টাল চালু করেছেন। শিক্ষক/শিক্ষিকারা এই পোর্টালটিতে লগ ইন করে বদলির জন্য আবেদন করতে পারবেন। পোর্টালটি হলো, https://banglarshiksha.gov.in/utsashree/

উৎসশ্রী পোর্টালের সুবিধা এবং বৈশিষ্ট্য | Benefits of Utsoshree Scheme

  1. সহজভানবে বদলি বা স্থানান্তরের অনুরোধ করা যা্যত
  2. প্রকল্পটির স্বচ্ছতা
  3. প্রকল্পটির অধীনে আসতে গেলে এনওসি লাগবে না।

প্রশ্নোত্তর - Frequently Asked Questions

উৎসশ্রী পোর্টালে আবেদন কবে থেকে চালু হয়?

০২-০৮-২০২১ থেকে চালু হয়।

উৎসশ্রী পোর্টালে আবেদনের জন্য কি NOC প্রয়োজন ?

না। তবে, প্রাথমিক বা উচ্চ-প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে SI এর NOC প্রয়োজন।

দূরত্বের সার্টিফিকেট কোথায় পাওয়া যাবে?

সাধারণত RTO অফিস থেকে এই সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে হয়। তবে গুগুল ম্যাপের স্ক্রীনশট নেওয়াটাই হলো সর্বোত্তম উপায়।

উৎসশ্রী প্রকল্পে মেডিকেল গ্রাউন্ডে আবেদনের করার জন্য আবেদনকারীর ক্ষেত্রে কোন কোন রোগগুলি প্রযোজ্য?

আবেদনকারীর যদি ঘোরতর অসুখ, তীব্র হৃৎপিন্ডের রোগ, renal failure, থ্যালাসেমিয়া, অঙ্গ প্রতিস্থাপন, ঘোরতর গাইনোকোলজিক্যাল ডিস-অর্ডার থাকে তাহলে আবেদন করা যাবে মেডিক্যাল গ্রাউন্ডে।

একটি শূন্য পদের জন্য যদি একাধিক আবেদনপত্র জমা পড়ে তাহলে কিভাবে বিবেচনা করা হবে?

নিয়ম অনুযায়ী আবেদনকারীর প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে তা বিবেচনা করা হয়ে থাকে। তবে যদি একাধিক জনের প্রাপ্ত নম্বর সমান হয় তবে আগে যিনি আবেদন করেছেন তাকেই প্রাধ্যান্য দেওয়া হয়ে থাকে।


Contents ( Show )

telegram channel Viral News on Telegram

পিডিএফ ডাউনলোড | Print or Download PDF File