Good Habits | জীবনকাহিনী ভিন্ন হলেও এই জিনিসগুলি সকলেরই এক! সফলতা পেতে যে অভ্যাসগুলি অনুসরণ করেন বিশ্বের সফল ব্যক্তিরা..

Friday, May 31 2024, 10:57 am
highlightKey Highlights

ইলন মাস্ক, বিল গেটস, আম্বানি, টাটার মতো মানুষদের সাফল্যের কাহিনী গোটা বিশ্বের সকলেই জানেন। এরকম বিশ্বের সফল ব্যক্তিদের প্রত্যেকের জীবনই ভিন্ন। সকলেই ভিন্নভাবে লড়াই করে সফল হয়েছেন। তবে এনাদের মধ্যে কয়েকটা জিনিস কিন্তু এক। আর সেটি হলো অভ্যাস। কিছু বিশেষ অভ্যাস আছে যা প্রায় সকল ধনী এবং সফল ব্যক্তি মেনে চলেন এবং সেগুলো তাদের সফল হতে সাহায্যও করেছে।


শারীরিক-আর্থিক সবদিক থেকেই সফল হতে চান সকলেই। তবে সফল হতে গেলে পেরোতে হয় কঠিন পথ। মুখিমুখি হতে হয় নানান বাঁধার। ইলন মাস্ক, বিল গেটস, আম্বানি, টাটার মতো মানুষদের সাফল্যের কাহিনী গোটা বিশ্বের সকলেই জানেন। এরকম বিশ্বের সফল ব্যক্তিদের প্রত্যেকের জীবনই ভিন্ন। সকলেই ভিন্নভাবে লড়াই করে সফল হয়েছেন। তবে এনাদের  মধ্যে কয়েকটা জিনিস কিন্তু এক। আর সেটি হলো অভ্যাস। কিছু বিশেষ অভ্যাস আছে যা প্রায় সকল ধনী এবং সফল ব্যক্তি মেনে চলেন এবং সেগুলো তাদের সফল হতে সাহায্যও করেছে। দেখা নেওয়া যাক সফল ও সমৃদ্ধ জীবনধারা (rich lifestyle) পরিচালনা করার জন্য কী কী অভ্যাস থাকা উচিত-

লক্ষ্য নির্ধারণ :

ভালো অভ্যাসের তালিকা (good habits chart) এর মধ্যে সবথেকে প্রয়োজনীয় লক্ষ্য নির্ধারণ। সফল ব্যক্তিরা অর্জনযোগ্য লক্ষ্য নির্ধারণ করেন। তারা যা অর্জন করতে চায় তা কল্পনা করে এবং তাকে ছোট, পরিচালনাযোগ্য উদ্দেশ্য অনুসারে বিভক্ত করে। এই লক্ষ্যগুলো তাদের জন্য একটি রোডম্যাপের মতো যা দিক নির্দেশ এবং অনুপ্রেরণা দেয়। 

মেডিটেশন : 

জীবনে সফল ব্যক্তিরা নিয়মিত মেডিটেশনও করেন। এই অভ্যাস তাকে শান্ত থাকতে এবং কাজে মনোযোগী হতে ভূমিকা রাখে। এছাড়াও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, ১০টি ভালো অভ্যাস (10 Good Habits) এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মেডিটেশন।

সময় ব্যবস্থাপনা :

সফল মানুষের জন্য সময় খুবই মূল্যবান। এটি কাজগুলোকে অগ্রাধিকার দেয়, এক্ষেত্রে প্রয়োজনে কম গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো ছেড়ে এবং সময় নষ্ট করা কার্যকলাপ এড়িয়ে  চলা যায়। কার্যকর সময় ব্যবস্থাপনার কারণে সফল ব্যক্তিরা প্রতিটি দিনের সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে পারেন। 

অধ্যবসায় :

জীবনে পরিশ্রম করতে হবে এবং বাধা ও চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। সবচেয়ে সফল ব্যক্তিরা স্থিতিস্থাপক। তারা ব্যর্থতা এবং বিপত্তি থেকে ফিরতে জানে। তারা বাধাকে বৃদ্ধির সুযোগ হিসেবে দেখেন এবং এগিয়ে যেতে থাকেন। 

যোগাযোগ :

সাফল্যের জগতে দৃঢ় সম্পর্ক তৈরি করা এবং বজায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ। সফল ব্যক্তিরা নেটওয়ার্কিংয়ের শক্তি বোঝেন। তারা পেশাদার সম্পর্ক এবং সহযোগিতা, পরামর্শদাতা এবং সমর্থন খোঁজার জন্য সময় বিনিয়োগ করেন। 

স্বাস্থ্য :

সফল ব্যক্তিরা তাদের স্বাস্থ্যের যত্ন নেন। কারণ সুস্বাস্থ্য এবং সুস্থতা না থাকলে আপনি সফল হতে পারবেন না। সমৃদ্ধ জীবনধারা (rich lifestyle) পরিচালনা করার জন্য স্বাস্থ্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সবচেয়ে সফল ব্যক্তিরা তাদের শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যকে অগ্রাধিকার দেন। নিয়মিত ব্যায়াম, সুষম খাদ্য খাওয়া এবং পর্যাপ্ত বিশ্রাম তাদের রুটিনের অন্যতম উপাদান। 

পরোপকারী : 

অনেক সফল মানুষ পরোপকারী এবং সমাজকে ফিরিয়ে দিতে বিশ্বাসী। তারা তাদের বিশেষাধিকার জানেন এবং বিশ্বে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে তাদের সাফল্যকে ব্যবহার করেন। 

ঘুম : 

 প্রায়ই অনেকে দাবি করেন যে সবচেয়ে সফল ব্যক্তিরা তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠেন। এমন বহু উদাহরণ পাওয়া যায়। যেমন জেফ বেজোস, হাওয়ার্ড শুল্টজ, মার্থা স্টুয়ার্ট, টিম কুক এবং বব ইগারের মতো এমন বহু কোটিপতি আছেন যারা ভোর ৫ টার আগে ঘুম থেকে ওঠেন। ভোরে উঠলে দিনের অনেকটা সময় কাজ করা যায়। এছাড়াও এটি স্বাস্থ্যের জন্যও ভালো। তাই স্বাস্থ্য বিষেশজ্ঞরা এই অভ্যাসকে ১০টি ভালো অভ্যাস (10 Good Habits) এর মধ্যে অন্যতম বলে মনে করেন।  তবে ভোরে ওঠার সঙ্গে পর্যাপ্ত ঘুমেরও দরকার।

পড়াশোনা:

 পড়াশোনাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেন বিশ্বের সফল ব্যক্তিরা। পড়াশোনাই যে সাফল্যের শিখরে পৌঁছে দেন, সে কথাই বিশ্বাস করেন তাঁরা। এর জন্য বেশি বয়সেও পড়ার অভ্যাস ধরে রাখেন।  

ঋণ না নেওয়া : 

সরাসরি বলতে গেলে ঋণে জড়াবেন না। আপনি যদি এই অভ্যাস করতে পারেন তাহলে কয়েক মাসের মধ্যেই আর্থিক অবস্থার চিত্র দেখবেন পাল্টে গেছে। আপনি যদি ঋণের ওপর অভ্যস্ত বা নির্ভরশীল হয়ে পড়েন, তাহলে সেই অর্থের কিস্তি বা সুদের হিসাব পরিশোধ করার পর সঞ্চয়ের জন্য হাতে কিছুই থাকবে না। এ জন্য প্রয়োজনের বাইরে খরচ না করা ভালো। আর ভবিষ্যতের জন্য সঞ্চয়ের অভ্যাস করুন।

ইমারজেন্সি ফান্ড তৈরি: 

ইমারজেন্সি ফান্ড বা জরুরি তহবিল তৈরি করুন। মাসে যত টাকাই আয় হোক না কেন, সেখান থেকে নির্দিষ্ট একটি অংকের অর্থ সেই ফান্ডে রাখুন। অধিকাংশ সফল মানুষ মাসিক খরচের বাইরে একটি অংশ জরুরি তহবিলে ভবিষ্যতের জন্য রেখে দেন। 

বিনিয়োগের আগে চিন্তা করা:

 ধনী ব্যক্তিরা বিনিয়োগের আগে ভালো করে জেনে-বুঝে নেন। তারা কখনোই চিন্তা করা ছাড়া লাভের আশায় হঠাৎ করেই বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেন না। হতে পারে তা স্টক এক্সচেঞ্চ বা বন্ড বিনিময়ের ব্যবসা। যেকোনো ব্যবসায় বিনিয়োগের আগে ঝুঁকি নেয়ার জন্য মানসিভাবে প্রস্তুত হতে হবে। 

নতুন কিছু শেখা :

সফল ব্যক্তিরা নতুন নতুন অভিজ্ঞতা, বিষয় শিখতে আগ্রহী থাকেন। এই আগ্রহই তাদের বড় মানুষে পরিণত করে। বেশিরভাগ সফল ব্যক্তি এবং নেতা অনেক বই পড়েন। পড়ার অনেক ধরনের সুবিধা আছে। বই পড়ার মাধ্যমে তিনি সামনে চলার অনুপ্রেরণা পান। 

বিশ্রাম করা

সফল ব্যক্তিরা শুধু কঠোর পরিশ্রমই করেন না, বিশ্রামও নেন শরীর ও মনের সুস্থতার জন্য। 

প্রসঙ্গত, অনেকেই মনে করেন হয়তো বংশগতভাবে বা উত্তরাধিকারসূত্র ধরেই সাফল্য লাভ করা যায়। অনেকে আবার মনে করেন সাফল্য আসে ভাগ্যজোরে। আসলে সবক্ষেত্রেই প্রয়োজন নিজ মেধা, ইচ্ছাশক্তি ও পরিশ্রমের। আর এর জন্যই বিশ্বের সফল ব্যক্তিরা নিজেরদের জীবন পরিচালনার ক্ষেত্রে কিছু বদল আনেন এবং কিছু অভ্যাস মেনে চলেন। আর বিশেষজ্ঞরা মনে করেন এইসব ভালো অভ্যাসের তালিকা (good habits chart) যে কেউ মেনে চললেই তার জীবনেও সাফল্য আসা কাম্য।




পিডিএফ ডাউনলোড | Print or Download PDF File