ক্রিকেট খেলার খুঁটিনাটি, ইতিহাস, নিয়ম কানুন | Everything about Cricket, game rules, history, details in Bengali [ With PDF Download]

Wednesday, April 13 2022, 10:59 am
highlightKey Highlights

পৃথিবীর অন‍্যতম জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেট। চারশো বছরের বেশি প্রাচীন এই খেলা নিয়ে মানবজাতির আগ্রহের শেষ নেই। বাইশ গজের এই লড়াইয়ে রয়েছে প্রচুর উন্মাদনাটা যা দর্শককে প্রতিনিয়ত মনোরঞ্জন করে চলেছে । Cricket Rules and History in bangla with PDF available


অনেকের কাছে ক্রিকেট খেলাটি 'ধর্মের' ন‍্যায়। বর্তমানে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ যেমন ইংল্যান্ড ,ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়া ,ভারত ,পাকিস্তান ,দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা ,জিম্বাবোয়ে তে ক্রিকেট আজ সমাদৃত। কিন্তু শুরু থেকেই বিশ্ব জুড়ে ফুটবলের জনপ্রিয়তার পরই রয়েছে ক্রিকেটের স্থান।

ক্রিকেট খেলার ইতিহাস | History of Cricket in Bengali

ভারতে  ক্রিকেটের প্রচলন শুরু হয়  পাঞ্জাব অঞ্চলের 'দোয়াব' এলাকায়। ৭ম শতাব্দীতে এই এলাকায় ব্যাট এবং বল নামে এক ধরনের খেলা হতো। ৮ম শতাব্দীর  কিছু পরের  খেলাটি পারস্যের দিকে প্রচলিত হতে থাকে। প্রচলিত আছে যে  ইউরোপে ১০ম শতাব্দীর আগে প্রাচীন ভারতীয় মরুভূমিতে বসবাসকারী ‘নরম্যাডিক জিপসি’রা তুরস্ক হয়ে ইউরোপে যায় এবং সেখানে গিয়ে তারা  এই খেলাটি খেলে থাকে। তাদের অনুসরণ করেই  ইউরোপীয়দের মধ্যে খেলাটির প্রচলন হয়।

History of Cricket
History of Cricket

বল নিয়ে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নানা ধরনের খেলা প্রচলিত ছিল। তবে বলের সাথে ব্যাটের উদ্ভব হয়েছে দক্ষিণ ভারতে। সেখানে ব্যাটকে 'ডান্ডা' বলা হতো। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্রিকেট খেলা শুরু হয়েছিলো ষোড়শ শতকের শেষদিকে। অষ্টাদশ শতাব্দীতে এটি ইংল্যাণ্ডের জাতীয় খেলারূপে গণ্য হয় এবং ঊনবিংশ ও বিংশ শতাব্দীতে এটি বিশ্বব্যাপী সমাদৃত হয়  ।  

ক্রিকেটের আদি সংস্করণ | Old Version of Cricket 

১০৬৬ খ্রীষ্টাব্দে  নরম্যানরা ইংল্যান্ড বিজয়ের পর  চিত্ত-বিনোদনের জন্য ব্যাট-বলের খেলার ধারণাটি গ্রহণ করে। প্রচলিত আছে তারাই  গোড়াপত্তন করে ক্রিঘ (crea  gh)/ ক্রিকে (cricke) নামক খেলার। সে সময় শুধুমাত্র সপ্তাহের রবিবার এই খেলাটি সম্পাদিত হতো  । খেলাটির ধরন অনুযায়ী   – একটি বল একজন ব্যাটসম্যানের দিকে ছুড়ে মারতে হতো।

ব্যাটসম্যানের ঠিক পেছনেই স্ট্যাম্পের মতো যে একধরনের কাঠামো থাকতো সেই কাঠামোকে তার হাতে থাকা কাঠের তক্তা দিয়ে বলটিকে বাড়ি মারা হত আর সেই বলটিকে ধরার জন্য তার চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে কয়েকজন ফিল্ডারও থাকতো।

ক্রিকেটের অন্ধকার যুগ | Dark Days in Cricket

১৪০০ খ্রিস্টাব্দে এসে শুরু হয়ে যায় ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে  রাজ্য জয়ের প্রতিযোগিতা যা চলে ১৫০০ সাল পর্যন্ত  । তাই রাজা দ্বিতীয় রিচার্ড ইংল্যান্ডে খেলাটি কে নিষিদ্ধ করেন সে সময়কালে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে   কেউ ক্রিকেট খেললে  তাকে শাস্তি দেয়া হতো।

ক্রিকেটের এগিয়ে যাওয়া | How Cricket Evolved explained in Bengali

১৫০০ খ্রিস্টাব্দের শেষের দিকে ইতালিয় রেনেসার প্রভাবে ইউরোপের শিল্প-সংস্কৃতির কাঠামো পাল্টাবার সাথে সাথে খেলাধুলার অবয়বে ও কিছুটা পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগে ।  ১৫০০ খ্রিস্টাব্দের আগে যেই খেলাটির নাম ছিল ক্রিঘ (creagh) বা ক্রিকে (cricke), সেটিই ১৬০০ খ্রিস্টাব্দে এসে পরিচিতি লাভ করে ক্রিকেট (crickett or crickette) নামে।

How Cricket Evolved explained in Bengali
How Cricket Evolved explained in Bengali

এক ধরনের অলিখিত নিষেধাজ্ঞাকে সাথে নিয়েই ক্রমশ  জনপ্রিয় হয়ে উঠতে লাগল ক্রিকেট। বিশেষত  একসময়  ধর্মযাজকদের মতে যে খেলাটি  ছিল অলস, অকর্মন্য আর জুয়াড়িদের খেলা , আজ আর তাদের কোনও নিন্দাই প্রতিবন্ধকতা হয়ে দাঁড়াল না  ,কোনো বাঁধাই আটকাতে পারেনি   ক্রিকেটের চলার পথ কে।

আধুনিক ক্রিকেটের শুভারম্ভ

 আধুনিক ক্রিকেটের পথচলা শুরু হয় ১৭১৯ সালে ইংল্যান্ড জাতীয় দল ও কেন্ট দলের মধ্যকার কাউন্টি ম্যাচের মাধ্যমে । ১৭২১ সালে ভারতবর্ষে আধুনিক ক্রিকেটের প্রচলন হয় ইস্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানির মাধ্যমে।  আধুনিক ক্রিকেটের বিভিন্ন নিয়ম-কানুন সংঘটিত  করা হয় ১৭৪৪ সালে এবং সেই নিয়ম অনুসারে   ক্রিকেট খেলা শুরু হয়।

টেস্ট ক্রিকেটের জন্ম | How Test Cricket Started

ইতিহাস স্বীকৃত টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচ খেলা শুরু হয় ১৮৭৭ সালে।এই খেলার আন্তর্জাতিক  প্রশাসনের দায়িত্বে আছে একশোর বেশি সদস্য সংখ্যাযুক্ত সংস্থা ,আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল। বিভিন্ন  দেশগুলির মধ্যে মোট বারোটি সদস্য দেশই টেস্ট ক্রিকেট খেলে। ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম টেস্ট ম্যাচে অংশগ্রহণ করে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া।

England's James Lillywhite Jr leads cricketers first-ever recognised Test match<br>
England's James Lillywhite Jr leads cricketers first-ever recognised Test match<br>

১৮৭৭ সালের ১৫ ই মার্চ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম ওয়ানডে ম্যাচেও অংশ গ্রহণ করে এই দুটি দল এবং  দুই ম্যাচেই অস্ট্রেলিয়া বিজয়ী ঘোষিত হয়  ।১৯০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘ইম্পেরিয়াল ক্রিকেট কনফারেন্স, যা বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা । পরবর্তীকালে  ১৯৫৬ সালে সংস্থাটির নাম    ‘ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল’ রাখা হয়। সংক্ষেপে আইসিসি।

১৮৮২-৮৩ সাল থেকে শুরু হয় মর্যাদাসম্পন্ন   অ্যাশেজ লড়াই। তারপর থেকে   অন্যান্য দেশ টেস্ট ক্রিকেটে একে একে পদার্পণ করে। দক্ষিণ আফ্রিকা ১৮৮৮-৮৯, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৯২৮, নিউজিল্যান্ড ১৯২৯-৩০, ভারত ১৯৩২, পাকিস্তান ১৯৫২-৫৩, শ্রীলঙ্কা ১৯৮১-৮২, জিম্বাবুয়ে ১৯৯২ এবং বাংলাদেশ ২০০০ সাল।

ওয়ানডে ক্রিকেটের জন্ম | Birth of One day cricket in Bangla

প্রাথমিক  দিকে টেস্ট ম্যাচগুলো অনেক দিন ধরে চলত এবং  তখন ম্যাচ দেখার জন্য প্রচুর দর্শক হত এবং  টিকিট কেটে খেলা দেখার প্রচলন ও শুরু হয়। কিন্তু সময় অসময়ে বিভিন্ন  প্রাকৃতিক দুর্যোগ এর কারণে  এই খেলা প্রায়ই বন্ধ থাকতো যা কিনা আয়োজক ও দর্শকদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডার অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল ।

 ক্রিকেট মাঠে দর্শক সমাগম ও আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার উদ্দেশ্যে রাগনেল হার্ভের উদ্যোগে রথম্যানস কো. ৪০ ওভারের একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করেন। 

One day cricket
One day cricket

অভূতপূর্ব সাফল্য পেল এই টুর্নামেন্ট। সকাল-বিকালের ম্যাচে জয়-পরাজয় প্রত্যক্ষ করার জন্য মাঠে ভিড় জমাতে শুরু করল অগণিত দর্শক,পরবর্তীকালে ১৯৬৩ সালে জিলেট কাপ নামে ৬০ ওভারের এক টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হয় ইংল্যান্ডে। এই টুর্নামেন্টই ১৯৮১ সালে ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি নামে পরিচিতি লাভ করে।  ইংল্যান্ডের দেখানো পথ অনুসরণ করেই   অন্যান্য দেশগুলোতেও সীমিত ওভারের খেলার প্রচলন শুরু হয়। ১৯৭১ সালের শুরুর দিকে ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ দিয়ে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচের শুরু হয় যেখানে অস্ট্রেলিয়া জয়ী হয়।

বিশ্বকাপ ক্রিকেট | Cricket World Cup

বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা ‘আইসিসি’ ক্রিকেট খেলে এমন  সবগুলো দেশ একসাথে নিয়ে নতুন এক টুর্নামেন্টের চিন্তাভাবনা করে যার ফলস্বরূপ  ১৯৭৫ সালের ৭ জুন প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেটের যবনিকার উত্থান হয় । 

প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আয়োজক ছিল ইংল্যান্ড এবং সেই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করে স্বাগতিক ইংল্যান্ড, পূর্ব আফ্রিকা, শ্রীলংকা, অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ভারত, পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড। ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ১৭ রানের ব্যবধানে পরাজিত করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম বিশ্বকাপে জয়ী দেশ হিসেবে ঘোষিত হয়  । 

ক্রিকেট খেলার  সাধারণ  নিয়মাবলী | Rules of Playing Cricket in Bengali  

ক্রিকেট ঘাসযুক্ত মাঠে খেলা হয় যা একটি বিশাল বৃত্তাকার অথবা ডিম্বাকার ঘাসবহুলল সমতল জমির ওপর নির্মিত । মাঠের ব্যাস সাধারণত ৪৫০ ফুট থেকে ৫০০ ফুট এর মধ্যে হয়ে থাকে। অধিকাংশ মাঠেই মোটা  দড়ি দিয়ে মাঠের পরিসীমা ঘেরা দেয়া থাকে যা সীমানা নামে পরিচিত । মাঠের ঠিক মাঝে বাইশ গজের ঘাসবিহীন অংশ থাকে যাকে পিচ বলে।

পিচ
পিচ

দুটি দলের খেলার এই প্রতিযোগিতাটি তে প্রত্যেক দলে এগারো জন করে খেলোয়াড় থাকে  । ক্রিকেট খেলার জন্য একটি কাঠের ব্যাটও মুষ্টির মতো আয়তনবিশিষ্ট বিশিষ্ট একটি গোলাকার কাঠের বলে দরকার পড়ে। পরস্পরের সম্পূর্ণ বিপরীত দিকে অবস্থিত মাঠের মধ্যস্থলে বাইশ গজ দূরে এক একদিকে তিনটি করে কাঠের দণ্ড পোঁতা হয়ে থাকে যাকে ক্রিকেটের পরিভাষায় 'উইকেট' বলে ।

উইকেট
উইকেট

উইকেটের মাথায় নির্দিষ্ট মানের দুটি করে কারদণ্ড থাকে যেগুলোকে বলা হয় 'বেইল'। ক্রিকেট খেলা আরম্ভ হওয়ার আগে টস করা হয় এবং যে পক্ষ টসে জয়লাভ করে তারাই সিদ্ধান্ত নেয় কে আগে ব্যাট করবে ।প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে উভয় দলকে পর্যায়ক্রমে দু বার করে ব্যাট করতে হয়  ।

ক্রিকেট খেলার নিয়ম কানুন pdf
ক্রিকেট খেলার নিয়ম কানুন pdf

প্রত্যেকবার খেলাকে একটি ইনিংস বলে অভিহিত করা হয়।  আম্পায়ার থাকেন এই খেলার পরিচালনাও নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে । বর্তমানে আরও এক আম্পায়ার অন্তরালে থাকেন যাকে থার্ড আম্পায়ার বলা হয়। বল নিক্ষেপকারীকে বোলার বলা হয় যে কিনা একাধারে ছটি বল অর্থাৎ এক ওভার  এবং প্রয়োজনমতো বিরতি নিয়ে দশ ওভার বল করতে পারেন  ।

ব্যাটধারির উইকেটের পেছনে যে দাঁড়িয়ে থাকে তাকে উইকেট রক্ষক বলে যার লক্ষ্য থাকে উইকেট বলের দিকে  । বাকি খেলোয়াড় চতুর্দিকে নির্দিষ্ট স্থানে দাঁড়িয়ে থাকে বল আটকাবার জন্য যাদের ফিল্ডার বলা হয় এক দলের দশ জন খেলোয়াড় আউট হলে তাদের এক ইনিংস শেষ হয় তখন  অপর দলটি ব্যাট করার সুযোগ পায়  ।

ক্রিকেট খেলার  নিয়ম  | 8 Rules of Playing Cricket in Bangla

১. মানকাডি‌ং রুল

কিংবদন্তি ভারতীয় ক্রিকেটার ভিনু মানকড়ের নাম অনুসারে রাখা এই নিয়ম অনুযায়ী নন – স্ট্রাইকার ব‍্যাটসম‍্যান ক্রিজ ছাড়লে সেই সময় বোলার ডেলিভারি না করতে এসে স্ট‍্যাম্প উড়িয়ে দিলে তাকে আউট করে দিতে পারে।বিষয়টি “স্পোর্টসম‍্যান স্পিরিট ” এর বাইরে হলেও এখনও জারি রয়েছে এই নিয়ম।

২. থ্রি – মিনিট রুল

উইকেট পড়লে পরবর্তী ব‍্যাটসম‍্যান’কে তিন মিনিটের মধ্যে মাঠে উপস্থিত  হতে হবে। ” থ্রি – মিনিট রুল ” এর নিয়ম অনুযায়ী যদি এই তিন মিনিট সময়ের মধ্যে ব‍্যাটসম‍্যান মাঠে না উপস্থিত হতে পারে তবে তাকে আউট ঘোষণা করতে পারেন আম্পায়ার।

৩. দ‍্য ক‍্যাপ রুল

 ক্রিকেটারদের টুপি সংক্রান্ত  হলএই নিয়মটি  ।কোনও ক‍্যাচ নিতে গিয়ে বল হাতে আসার আগে যদি সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটারের পরিহিত টুপিতে স্পর্শ করে।তাই সেই ব‍্যাটসম‍্যান’কে আউট বলে গন‍্য করা হবে না।

৪. হ‍্যান্ডেলিং দ‍্য বল

এই নিয়ম অনুযায়ী যদি বল ব‍্যাটসম‍্যানের ব‍্যাটের ধার ঘেঁষে বেরিয়ে যায় তখন সংশ্লিষ্ট ব‍্যাটসম‍্যান কোনও রকম ভাবে সেই বলকে হাত দিয়ে আটকে রাখতে পারবেনা।তবে ব‍্যাট অথবা পা দিয়ে আটকানোর চেষ্টা করাতে কোনো আপত্তি নেই  ।

৫. অবজেক্ট হিটিং রুল

ম‍্যাচ চলাকালীন ম‍্যাচ কভাররত স্প‍্যাইডার ক‍্যামে যদি দুর্ঘটনা বশত বল গিয়ে লাগে, তবে সেই বল কে অবিলম্বে ডেড বল হিসেবে ঘোষণা করা হবে।পুনরায় ডেলিভারি করতে হবে সংশ্লিষ্ট বোলারকে।

৬. দ‍্য নেসেসারি এ্যপিল রুল

 যতক্ষন না বোলিং সাইডের তরফে আবেদন করা হচ্ছে ম‍্যাচ পরিচালনারত অন গ্রাউন্ড আম্পায়ারেরা কেউই কোনও সিদ্ধান্ত দিতে পারবেনা  এবং  আবেদন না করা অবধি আঙুল তুলতে পারবে না আম্পায়ার।

৭. কল ব‍্যাক

ব‍্যাটসম‍্যান আউট হয়ে গেলেও বিপক্ষ অধিনায়কের অনুরোধে তাকে পুনরায় মাঠে ফিরিয়ে আনা যেতে পার এবং এই   পরিস্থিতি তখন সৃষ্টি হয় যখন কোনো ব‍্যাটসম‍্যান অনায‍্য ভাবে আউট হয়।

৮. পেনাল্টি রুল

মাঠে রাখা উইকেট কিপারের হেলমেটে যদি বল গিয়ে স্পর্শ করে তাহলে ব‍্যাটিং সাইড ’কে অবিলম্বে পাঁচ রান দেওয়া হবে।এই নিয়মের দ্বারা ব্যাটিং সাইড সবথেকে বেশি উপকৃত হয়।

বর্তমানে সারা বিশ্বব্যাপী ক্রিকেট একটি অন্যতম জনপ্রিয় খেলা হিসেবে পরিগণিত। এই খেলায় কৌশল যেমন প্রয়োজন তেমনি বুদ্ধির প্রখরতা ও আবশ্যিক । শারীরিক গঠন, ধৈর্য, সহিষ্ণুতা সতর্কতা ও সহযোগিতার মতো কিছু বিশেষ   গুণ আয়ত্ব করা যায় এ খেলার মাধ্যমে । জাতিধর্ম নির্বিশেষে ক্রিকেট বিশ্বের দরবারে সকল মানুষকে একসূত্রে বেঁধে রেখেছে এবং   বিভিন্ন  দেশের মধ্যে মৈত্রী ও সখ্যতা স্থাপন করেছে যা ভবিষ্যতে বিশ্ব শান্তির দ্বার উন্মোচিত করবে এবং আগামী প্রজন্মেকে আরও সমৃদ্ধ করবে  ।

প্রশ্নোত্তর - Frequently Asked Questions

ক্রিকেট খেলার জন্ম কোথায়?

ইংল্যান্ডে

ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার নাম কি?

ICC (International cricket council)

ICC প্রতিষ্টিত হয় কখন?

১৯০৯ সালে

ICC এর বর্তমান সদস্য দেশ কয়টি?

১০৬টি

টেস্ট ক্রিকেট শুরু হয় কবে?

১৮৭৭ সালে

ওয়ান ডে ম্যাচ শুরু হয় কবে?

১৯৭১ সালে

বিশ্বকাপ ক্রিকেট শুরু হয় কখন?

১৯৭৫ সালে

বাংলাদেশ ওয়ানডে মর্যাদা লাভ করে কবে?

১৯৯৭ সালে

ক্রিকেট খেলার জনক কাকে বলে ?

ডব্লিউ. গি. গ্রেস ।

ক্রিকেট খেলার পিচের আয়তন কত?

৬৬ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া ।

ক্রিকেট খেলাতে ৬ বলে কবে থেকে ওভার শুরু হয় ?

১৯০০ সাল থেকে ।

I .C. C এর পুরো নাম কি ?

ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল ।

ক্রিকেট বল কি দিয়ে তৈরি হয় ?

কর্ক, চামড়া, টোন সুতো দিয়ে ।

ক্রিকেট বলের পরিধি কত হয় ?

২২.৪ সেমি থেকে ২২.৯ সেমি পর্যন্ত


telegram channel Viral News on Telegram

পিডিএফ ডাউনলোড | Print or Download PDF File