সন্তান এর জন্ম দিতে সক্ষম রোবট! অবিশ্বাস্য সাফল্য বিজ্ঞানীদের | Robot capable of giving childbirth!

Saturday, December 18 2021, 5:08 am
highlightKey Highlights

রোবটের পক্ষে কী প্রজনন করা সম্ভব? এই অবিশ্বাস্য ঘটনাই বাস্তবে ঘটতে চলেছে। আর এই জীবিত রোবটের নাম জেনোবটস।


এক অবিশ্বাস্য কাজ করলেন আমেরিকার বিজ্ঞানীরা। পৃথিবীর প্রথম 'জীবিত রোবট' (Living Robot) আবিষ্কার করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। তবে এই 'জীবিত রোবট' আসলে জেনোবটস বায়োলজিক্যাল রোবটেরই আপডেটেড ভার্সন। 

জেনোবট আসলে কী? 

‘জেনোবট’ হচ্ছে এক জীবন্ত রোবট, যার দৈর্ঘ্য এক মিলিমিটারের থেকেও ছোট। আমেরিকার বিজ্ঞানীরা এই 'জেনোবট’ দিয়েই এই অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটিয়েছেন। এই রোবটটি আসলে আফ্রিকার বিশেষ নখওয়ালা এক প্রজাতির ব্যাঙ জেনোপাস লেভিসের শরীরের এক বিশেষ ধরনের কোষ নিয়ে তৈরি। এই জেনোপাস থেকেই রোবটটির নামকরণ করা হয় 'জেনোবট’। 

মানুষের মতোই নতুন প্রানের জন্ম দেবে রোবট
মানুষের মতোই নতুন প্রানের জন্ম দেবে রোবট

২০২০ সালে এই বিস্ময়কর রোবটটি আবিষ্কার করেন আমেরিকার ভার্মন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। এই রোবটটির কিছু বিশেষ গুনাবলীও আছে। সেগুলি হল-

  • ১ মিলিমিটারের থেকেও ছোটো এই যন্ত্রটি সহজেই মানুষের শরীরের মধ্যে ঢুকে যেতে পারে।
  •  মানবদেহে প্রবেশ করে সেখানে নির্বিঘ্নে হেঁটে-চলে-সাঁতরে বেড়াতে পারে। 
  • সপ্তাহের পর সপ্তাহ কোনো খাবার না খেয়েই বাঁচতে পারে এবং মানবদেহের ভিতরে থেকে তার যাবতীয় কর্মকাণ্ডও চালিয়ে যেতে পারে। 
  • কোথাও কোনওরকম আঘাত পেলে, নিজেই সেই ক্ষত এক নিমিষে সারিয়ে ফেলতে পারে। 

২০২০-র আবিষ্কারের প্রায় দু’বছর পর এ বার আরও একটি সুখবর দিলেন আমেরিকান বিজ্ঞানীরা। 'জেনোবট'-এর গুনাবলীর মধ্যে আরও একটি এবং সবচেয়ে বড়ো বিস্ময়কর সংযোজন হল রোবটটির মধ্যে প্রজনন ক্ষমতাও রয়েছে। 

কীভাবে সম্ভব হচ্ছে রোবটের প্রজনন প্রক্রিয়া তা জেনে নিন

জ়েনোবটের প্রজনন ক্ষমতা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার থেকে একেবারেই ভিন্ন অর্থাৎ যে ভাবে প্রাণী বা উদ্ভিদ জগতে প্রজনন হয়, তার সঙ্গে এর কোনও মিল নেই। যে জীবন্ত কোষ দিয়ে জেনোবট তৈরি হয়েছে সেই স্টেম কোষ দ্বারা নিজস্ব আরও অনেক কোষ তৈরি করা সম্ভব। 

 এই গবেষণাকে বিজ্ঞানীরা, ‘বায়োলজিক্যালি ইনস্পায়ারড ইঞ্জিনিয়ারিং' বলে চিহ্নিত করেছেন।

জ়েনোবটের পক্ষে নতুন প্রাণের সৃষ্টি করা সম্ভব
জ়েনোবটের পক্ষে নতুন প্রাণের সৃষ্টি করা সম্ভব

 অবিশ্বাস্য আবিষ্কার সম্পর্কে গবেষকদের ধারণা

এই গবেষণার অন্যতম মুখ্য ভূমিকায় থাকা বিজ্ঞানী, টাফ্টস বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালেন ডিসকভারি সেন্টারের ডিরেক্টর, তথা জীববিশেষজ্ঞ মাইকেল লেভিন এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘‘আমি অবাক হয়ে যাচ্ছি। ব্যাঙের একটি নিজস্ব প্রজনন ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু তার কোষগুলিকে যখন ভ্রূণ থেকে আলাদা করা হয়েছে, একটি নতুন পরিবেশে নিজেদের মতো বাঁচার সুযোগ দেওয়া হয়েছে, তারা শুধু নিজেদের মতো চলার রাস্তা খুঁজে নেয়নি, প্রজননের পথও বার করে নিয়েছে!’’

ভার্মন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স ও রোবোটিক্সের অধ্যাপক জশ বোনগার্ড বলেন, ‘‘রোবট শুনলেই বেশির ভাগ লোক মনে করেন, ধাতু বা সেরামিকস দিয়ে তৈরি কিছু। কিন্তু রোবটের অর্থ সেটা নয়। রোবট হল এমন কিছু, যা মানুষের হয়ে নিজের মতো কাজ করে যেতে পারে।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘এটা রোবটই। তবে হ্যাঁ, এটি একটি জীবও। ব্যাঙের কোষ থেকে কোনও রকম জিনগত পরিবর্তন না ঘটিয়ে এটিকে তৈরি করা হয়েছে। এটি চিরাচরিত ভাবে চেনা রোবট নয়, আবার কোনও নতুন প্রাণীর প্রজাতিও নয়। নতুন ধরনের আর্টিফ্যাক্টস। বলা যায়, জীবন্ত, নিয়ন্ত্রণযোগ্য জীব।’’

কী কী কাজে নিযুক্ত করা যেতে পারে এই জীবন্ত রোবটটিকে 

ইতিমধ্যেই বিভিন্ন কাজের জন্য জেনোবট-এর বিশাল চাহিদা হয়ে গিয়েছে। তবে সেগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এই গবেষণার ক্ষেত্রে অর্থ ঢেলেছে আমেরিকার প্রতিরক্ষা ।

  • এই বিশেষ রোবটটি আমেরিকার সেনাবাহিনীতে নিয়োগ করা যেতে পারে।
  • চিকিৎসা ক্ষেত্রে মানুষের শরীরের ভিতরে এর সাহায্যে ওষুধ পাঠানো হবে। ধমনীতে রক্তপ্রবাহে বাধা তৈরি হলে, তা সারাতে সাহায্য করবে। এ ছাড়া, সেল বায়োলজির গবেষণাতেও সাহায্য করবে।<br>
  • তেজস্ক্রিয় বর্জ্য পরিষ্কার বা সমুদ্র থেকে মাইক্রোপ্লাস্টিক সংগ্রহের মতো কাজও নিমেষে করে ফেলবে এই ‘জীবন্ত রোবট’।<br>

এক মিলিমিটারেরও কম, অর্থাৎ প্রায় ০.০৪ ইঞ্চি মাপের জ়েনোবটের একটি নির্দিষ্ট দৈহিক গঠন আছে। বিজ্ঞানীরা সুপার কম্পিউটারের সাহায্যে সেই গঠন তৈরি করেছিলেন এবং এদের এমন একটি আকার  দেওয়া হয়েছে, যা জীবজগতে আগে ছিল না।

প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথে এ ধরনের অভাবনীয় বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার একবিংশ শতাব্দীর মানুষকে যে আরও উন্নতির পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে চলেছে সে ব্যাপারে কোনো দ্বিমত নেই।

প্রশ্নোত্তর - Frequently Asked Questions

রোবট তৈরিতে কী কী উপাদান ব্যবহার করা হয়?

রোবট তৈরীতে ব্যবহৃত মূলত ৫ টি প্রধান উপাদান হল-১. ইস্পাত, ২. রাবার, ৩. অ্যালুমিনিয়াম, ৪. কেভলার, ৫. বায়োডিগ্রেডেবল।

রোবট কোন কাজে ব্যবহার করা হয়?

বিরক্তিকর এবং কোনো বিপজ্জনক কাজে, দুর্গম স্থানে কাজের ক্ষেত্রে এবং যে কোনো ঝুঁকিপূর্ণ কাজে।

রোবট কি?

রোবট একটি যান্ত্রিক বা কাল্পনিক কৃত্রিম কার্যসম্পাদক। এটি একটি ইলেকট্রনিক যান্ত্রিক ব্যবস্থা। এটি মানুষের বিকল্প হিসেবে কাজ করে।

রোবট শব্দটি কী থেকে এসেছে এবং এর অর্থ?

রোবট শব্দটি স্লাভিক শব্দ “রোবোটা” থেকে এসেছে। এর অর্থ হল শ্রমিক বা লেবার বা মানুষের দাসত্ব।

কে প্রথম রোবট আবিষ্কার করেন?

১৯৫৪ সালে পৃথিবীর প্রথম ডিজিটাল ও প্রোগ্রামেবল রোবট আবিষ্কার করেন জর্জ ডেভল।


telegram channel Viral News on Telegram