Covid-19: কেন ফের মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে করোনা সংক্রমণ?

Tuesday, June 21 2022, 8:12 am
highlightKey Highlights

টানা ২ বছর পর চলতি বছরের একেবারে শুরুতে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও ফের তা উদ্বেগের কারণ হয়ে উঠছে। কিন্তু কেন?


পশ্চিমবঙ্গে বেশ কিছু মাস আয়ত্বের মধ্যে ছিল করোনা পরিস্থিতি। হাতেগোনা কয়েক জন আক্রান্ত হলেও তা উদ্বেগের কারণ হয়ে ওঠেনি। কিন্তু সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত কয়েক দিনে আবার অল্প অল্প করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ।

স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, গত কয়েক দিনে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩৬২ জন। গত শনিবার, ১৮ জুন দেশে কোভিডে সংক্রমিতের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার পার করেছে। এমনকি আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তিও হচ্ছেন অনেকেই।

স্বাস্থ্যবিধি না মানা | Not following hygiene rules

মারণ ভাইরাস করোনা সংক্রমণ নিম্নগামী হতেই বারে বারে স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশের ব্যবহারও কমেছে। বাইরে থেকে ফিরে হাত-পা ধোয়া, সাবান জলে পোশাক কেচে নেওয়ার মতো ইত্যাদি সুরক্ষাবিধিও জনগণ সঠিকভাবে মানছেন না। 

Wash your hand
Wash your hand

মাস্ক না পরা | Not wearing a mask

"করোনা বুঝি বিদায় নিল"-এমন ভাবনাকে মাথায় রেখেই মাস্ক পরার অভ্যাসে ত্যাগ করার প্রবণতা তৈরি হয় অনেকের মধ্যেই। বর্তমানে রাস্তাঘাটে, গণপরিবহনগুলিতে একটা বড় অংশের মানুষকে মাস্কহীন অবস্থায় দেখা যাচ্ছে এখনও। আমাদের এই অসচেতনতাই নতুন করে কোভিড সংক্রমণের একটা বড় কারণ।

Wear Mask
Wear Mask

দূরত্ববিধি না রাখা | Not maintaining distance rules:

"দো গজ কি দূরী" - কোভিড সংক্রমণ কিছুটা হ্রাস পাওয়ায় শিকেয় উঠেছিল কোভিডবিধি। ফলে উৎসব, অনুষ্ঠানে একসঙ্গে অনেক মানুষ জমায়েত হয়েছিলেন। বাসে, ট্রেনে, ট্রামেও মানা হয়নি কোনও শারীরিক দূরত্ব। যার ফলস্বরূপ ফের দেশজুড়ে সক্রিয় হয়ে উঠছে করোনা সংক্রমণ।

কোভিড নির্দেশিকা অনুসরণ করুন
কোভিড নির্দেশিকা অনুসরণ করুন

করোনা টিকা : করোনা টিকা না নেওয়া মানুষের সংখ্যা কম হলেও একেবারে শূন্য নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনার সঙ্গে লড়াই করার অন্যতম অস্ত্র টিকাকরণ। টিকা নিয়ে আক্রান্ত হলেও মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে সকলের কোভিড টিকা এবং বুস্টার নেওয়া উচিত।

সর্দি-গর্মি ভেবে কোভিড পরীক্ষা না করা | Do not examine Covid for cold and flu:

ঋতু পরিবর্তনের সময় সাধারণ সর্দি, কাশি, জ্বর হলেও তা বৃষ্টিতে ভিজে বা এসির হাওয়া থেকে ঠান্ডা লেগে হয়েছে বলেই ধরে নিচ্ছেন অনেকে। অন্যদিকে চিকিৎসকরা বারবার সতর্ক করছেন, কোভিড এখনও নির্মূল হয়নি। তাই সামান্য সর্দি, জ্বর, কাশি, গলা ব্যথার মতো উপসর্গ এড়িয়ে যাওয়া ঠিক হবে না। কোভিড সংক্রান্ত একটিও উপসর্গ লক্ষ করলে সঙ্গে সঙ্গে পরীক্ষা করিয়ে নেওয়াটা জরুরি। 

কোভিড পরীক্ষা
কোভিড পরীক্ষা

করোনা সংক্রমণ রুখতে আলোচিত বিষয়গুলি নির্দিষ্ট নিয়ম অনুযায়ী মেনে না চললে ফের দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়বে মারণ করোনা ভাইরাস। অতীতের মতন হয়ত ভারত-সহ  গোটা বিশ্ব ফের লকডাউনের দিকে হাঁটতে পারে। তাই, সময় থাকে সতর্ক হন, কোভিড বিধি মেনে চলুন, সুস্থ থাকুন। 




পিডিএফ ডাউনলোড | Print or Download PDF File