Nipah Virus News | সংক্রমণের হার কম হলেও মৃত্যুহার বেশি! কেরলে নিপা ভাইরাসের আতঙ্কে ৭টি গ্রামকে কন্টেন্টমেন্ট জোন করলো সরকার!

Wednesday, September 13 2023, 8:11 am
highlightKey Highlights

কেরলে নিপা ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে দুজনের। চারজন আক্রান্তের মধ্যে দুজনের মৃত্যু। নিপা ভাইরাসের সংবাদ ছড়িয়ে পড়তেই বাড়ছে আতঙ্ক।


ক্রমশ আতঙ্কের চেহারা নিচ্ছে নিপা ভাইরাস (Nipah Virus News)। ইতিমধ্যেই কেরলে নিপা ভাইরাসের (Nipah Virus in Kerala) জেরে মৃত্যু হয়েছে দুজনের। মারণ ভাইরাস, কেরল ভাইরাস (Kerala Virus)বা নিপা ভাইরাসের সন্ধান মিলতেই গোটা রাজ্যে জারি করা হয়েছে সতর্কতা।সংক্রমণ রুখতে সাতটি গ্রামকে গণ্ডিবদ্ধ এলাকা (কনটেনমেন্ট জ়োন) বলে ঘোষণা করা হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বেশ কিছু স্কুল।

কেরলে নিপা ভাইরাসের জেরে মৃত্যু হয়েছে দুজনের
কেরলে নিপা ভাইরাসের জেরে মৃত্যু হয়েছে দুজনের

সূত্রের খবর, কেরলে নিপা ভাইরাসে (Nipah Virus in Kerala) এখনও পর্যন্ত চারজন আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। যার মধ্যে দুজনেরই মৃত্যু হয়েছে। জানা গিয়েছে, গত ৩০সে অগস্টের পর সোমবার কেরলের কোঝিকোড়ে একটি বেসরকারি হাসপাতালে দু’জনের ‘অস্বাভাবিক’ মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় স্বাস্থ্য দফতরের আশঙ্কা, মৃতেরা নিপা ভাইরাসের (Nipah Virus News) কবলে পড়েছিলেন। পরে প্রশাসনের তরফে নিশ্চিত করা হয়েছে যে কোঝিকোড় জেলায় সাম্প্রতিক ‘অস্বাভাবিক মৃত্যু’র পিছনে রয়েছে এই কেরল ভাইরাস (Kerala Virus) বা নিপা ভাইরাসই দায়ী। জানা গিয়েছে, যে ব্যক্তি ৩০ সে অগস্ট মারা গিয়েছেন, তিনি লিভার স্ক্লেরোসিসে ভুগছিলেন। তাঁর কিছু কমোর্বিডিটি ছিল। তাঁর মৃত্যুর  কারণ কমরবিডিটি থেকে হওয়া জটিলতা বলেই মনে হয়েছিল। কিন্তু যখন তাঁর আত্মীয় এবং পরিচিতদের ক্ষেত্রেও 'অস্বাভাবিক' জ্বর এবং অন্যান্য উপসর্গ দেখা দেয়, তখনই  নজরদারি চালানো হয় এবং আশঙ্কা করা হয়, নিপা ভাইরাসের জন্যই মৃত্যু হয়েছে।

নিপা ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত চারজন আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। যার মধ্যে দুজনেরই মৃত্যু হয়েছে
নিপা ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত চারজন আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। যার মধ্যে দুজনেরই মৃত্যু হয়েছে

নিপা ভাইরাস সংবাদ (Nipah Virus News) ছড়িয়ে পড়ার পরই রাজ্যে তৈরী হয়েছে আতঙ্কের পরিস্থিতি। যদিও কেরলে নিপা ভাইরাস (Nipah Virus in Kerala) মোকাবেলা করার জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার কেরল ভাইরাস (Kerala Virus) বা কেরলে নিপা ভাইরাস (Nipah Virus in Kerala) প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবীয় (Union Health Minister Mansukh Mandaviya) জানান, সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যে কেরলে দু’জনের মৃত্যুর জন্য দায়ী নিপা ভাইরাস। দক্ষিণের এই রাজ্যে নিপা ভাইরাসের মোকাবিলায় কেরল সরকারকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে একটি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদলও কেরলে পাঠানো হয়েছে।

 কেরলে নিপা ভাইরাস মোকাবেলা করার জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে
 কেরলে নিপা ভাইরাস মোকাবেলা করার জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে

ইতিমধ্যেই, পরীক্ষার জন্য নিপা ভাইরাসে কেরলে (Nipah Virus Kerala) মৃতদের একজন এবং তাঁর চার আত্মীয়ের নমুনা পাঠানো হয়েছে পুনের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিতে (National Institute of Virology, Pune)। জানা গিয়েছে যে পাঁচটি নমুনা পাঠানো হয়েছে, তার মধ্যে তিনটিতে নিপা ভাইরাস ধরা পড়েছে। উল্লেখ্য, যাঁরা কেরল ভাইরাস (Kerala Virus) বা নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত, তাঁদের মধ্যে নয় বছরের এক শিশুও রয়েছে।

মানবদেহের পাশাপাশি পশুপাখিদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটাতে পারে নিপা ভাইরাস
মানবদেহের পাশাপাশি পশুপাখিদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটাতে পারে নিপা ভাইরাস

নিপা ভাইরাসে কেরলে (Nipah Virus Kerala) মৃত্যুর পর এই ঘটনা নিয়ে যাতে আতঙ্ক না ছড়ায় তার জন্য বার্তা দিয়েছেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন (Kerala Chief Minister Pinarayi Vijayan)। একটি ভিডিয়ো বার্তায় বলেন যে, রাজ্য সরকার নিপা ভাইরাসের জেরে দু’টি মৃত্যুকে খুব গুরুত্ব দিয়ে দেখছে। মুখ্যমন্ত্রী মানুষকে সতর্কতা অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন যে উদ্বেগের কোনও কারণ নেই।

সংক্রমণ রুখতে সাতটি গ্রামকে গণ্ডিবদ্ধ এলাকা বলে ঘোষণা করা হয়েছে
সংক্রমণ রুখতে সাতটি গ্রামকে গণ্ডিবদ্ধ এলাকা বলে ঘোষণা করা হয়েছে

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে এই ভাইরাসের জেরে দুই জেলায় ১৭ জনের মৃত্যু হয়। সেই সঙ্গে ১৮ জন আক্রান্তের সন্ধানও পাওয়া গিয়েছিল। ২০২১ সালেও এই ভাইরাসে মড়ক দেখা দেয় দু’জেলায়। কিন্তু কীভাবে নিপা ভাইরাস সংক্রমণ ছড়ায়? এই প্রসঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (World Health Organization) বা হু (WHO) জানিয়েছে, মানবদেহের পাশাপাশি পশুপাখিদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটাতে পারে নিপা ভাইরাস। ফলাহারী বাদুড় বা ‘ফ্রুট ব্যাটস’-এর মাধ্যমে মূলত এর সংক্রমণ ঘটে। আক্রান্তদের মধ্যে সাধারণত জ্বর, পেশির ব্যথা, মাথাধরা, ঝিমুনি এবং বমি বমি ভাবের উপসর্গ দেখা দেয়।




পিডিএফ ডাউনলোড | Print or Download PDF File